মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি, শরীয়তপুর।

এক নজরে বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি, শরীয়তপুর জেলা ইউনিটঃ

 

বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি আন্তর্জাতিক রেডক্রস ও রেড ক্রিসেন্ট আন্দোলনের নীতিমালা (৭টি মৌলিক নীতিমালাঃ মানবতা, পাপহীনতা, নিরপেক্ষতা, স্বাধীনতা, স্বেচছামূলক সেবা, একতা, সার্বজনীনতা) ও আর্দশকে অনুসরন করে আর্তমানবতার সেবায় কাজ করে যাচ্ছে। টর্নেডো, বন্যা, সাইক্লোন, খরা, শৈত্যপ্রবাহ, মহামারী ইত্যাদি দূর্যোগ ছাড়াও দূর্ঘটনা, অগ্নিকান্ড এবং মানব সৃষ্ট দূর্যোগে যারা বিপন্ন ও ক্ষতিগ্রস্থ হয় এবং কোন সাহায্য ছাড়া যারা স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে যেতে পারেনা, সোসাইটি সর্বাগ্রে তাদের পাশে দাঁড়ায়।

আন্তর্জাতিক রেডক্রস ও রেড ক্রিসেন্ট আন্দোলনের অন্যতম পথিকৃত মহাত্মা জীন হেনরী ডুনান্ট ১৮২৮ সালের ৮ই মে সুইজারল্যান্ডের জেনেভা শহরের রম্নভারদিনি নামক স্থানে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতার নাম জীন জ্যাকুয়াস ডুনান্ট এবং মাতা এ্যানা এনেটাইনেট কোলাডন। মহাত্মা জীন হেনরী ডুনান্ট রেড ক্রস ও রেড ক্রিসেন্ট আন্দোলনের প্রতিষ্ঠাতা এবং তিনি ৮ই মে জন্মগ্রহণ করেন বিধায় তাঁর প্রতি সম্মান প্রর্দশনের জন্য সারা বিশেব প্রতি বছর মে মাসের ৮ তারিখ বিশব রেড ক্রস ও রেড ক্রিসেন্ট দিবস হিসেবে পালিত হয়ে থাকে।

 

১৮৫৯ সালের ২৪শে জুন, ইতালীর উত্তরাঞ্চলের সলফেরিনো নামক স্থানে ফ্রান্স ও অষ্ট্রিয়ার মধ্যে মানব ইতিহাসের এক ভয়াবহ ও মারাত্মক যুদ্ধ সংঘঠিত হয়। সূর্যোদয় থেকে সূর্যাস্ত পর্যত্ম ১৬ ঘন্টা ব্যাপী এই যুদ্ধ চলে। যুদ্ধে হতাহত হয় প্রায় ৪০,০০০ সৈন্য। আহত সৈন্যরা বিনা চিকিৎসায় যুদ্ধক্ষেত্রেই উন্মুক্ত প্রাত্মরে মৃত্যু যন্ত্রণায় ছটফট করছিল। সেই সময় সুইজারল্যান্ডের যুবক হেনরী ডুনান্ট ব্যবসা সংক্রাত্ম ব্যাপারে ফ্রান্সে তৃতীয় নেপোলীয়নের সাথে সাক্ষাৎ করতে যাচ্ছিলেন। যুদ্ধ পরবর্তী এ মর্মামিত্মক করুন ও ভয়াবহ দৃশ্য দেখে তিনি খুবই ব্যথিত হন এবং আশে পাশের গ্রামবাসীদের ডেকে এনে আহতদের সেবা শুশ্রষা করেন। তাঁরাই রেড ক্রসের প্রথম স্বেচছাসেবক, যাদের অধিকাংশ ছিলেন মহিলা। জীন হেনরী ডুনান্ট এই যুদ্ধের ভয়াবহ ও বিভীষিকাময় স্মৃতি ও তার প্রতিকারের জন্য ১৮৬২ সালে ‘এ মেমোরী অফ সলফেরিনো’ নামে একটি বই রচনা করেন। এ বইয়ের মাধ্যমে তিনি বিশ্ব বিবেকের কাছে এক মানবিক আবেদন সৃষ্টি করতে সমর্থ হন। বইটির মূল কথা ছিল ‘আমরা কি পারিনা প্রতিটি দেশে এমন একটি সেবা মূলক সংস্থা গঠন  করতে, যারা শত্রম্ন মিত্র নির্বিশেষে আহতদের সেবা করবে’। ১৯৬৩ সালের ৯ই ফেব্রম্নয়ারী জীন হেনরী ডুনান্ট ৪ জন সুইস নাগরিককে সাথে নিয়ে ‘কমিটি অফ ফাইভ’ গঠন করেন। এ কমিটির নাম পরিবর্তিত ‘আমর্ত্মজাতিক রেড ক্রস কমিটি বা আইসিআরসি হয়। ১৮৬৩ সালের ২৬শে অক্টোবর প্রথম বারের মত এই কমিটি ১৬টি দেশের প্রতিনিধিদের নিয়ে জেনেভায় আর্ত্মজাতিক সম্মেলন আহবান করে। সম্মেলনে ডুনান্টের মহতী প্রস্তাবগুলো পর্যালোচনামেত্ম গৃহীত হয় এবং তারই পরিপ্রেক্ষিতে রেডক্রস জন্ম লাভ করে। জীন হেনরী ডুনান্ট ১৯০১ সালে ডিসেম্বর মাসে ১ম নোবেল শান্তি পুরস্কারে ভূষিত হন। তিনি ১৯১০ সালের ৩০শে অক্টোবর ৮২ বছর বয়সে মৃত্যুবরণ করেন।

বাংলাদেশ ১৯৭৩ সালে পিও/২৬/১৯৭৩ আইন করে বাংলাদেশ রেড ক্রস সোসাইটি প্রতিষ্ঠা করা হয় যা ভূতাপেক্ষভাবে ১৯৭১ সালের ১৬ই ডিসেম্বর থেকে কার্যকর হয়। ১৯৮৮ সালের ৪ এপ্রিল, ৮ম সংশোধনীর মাধ্যমে প্রচলিত আইন সংশোধন করে বাংলাদেশে জাতীয় সোসাইটির নাম ও প্রতীক ‘রেড ক্রস’ থেকে ‘রেড ক্রিসেন্ট’ এ রুপান্তরিত করা হয় । হাঁটি হাঁটি পা পা করে বর্তমানে ১৮৭টি দেশে রেড ক্রস ও রেড ক্রিসেন্টের জাতীয় সদর দফতর প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।

সারা বাংলাদেশে রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির মোট ৬৮টি ইউনিট রয়েছে, যার মধ্যে শরীয়তপুর জেলা অন্যতম। শরীয়তপুর ইউনিট আর্তমানবতার সেবায় সারা জেলায় বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করছে। ইউনিটের যুব সদস্যদের সহায়তায় শীর্তাতদের মাঝে কম্বল বিতরন, বন্যা ও নদী ভাঙ্গন এলাকায় ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের মাঝে ত্রাণ বিতরন, রক্তদান কর্মসূচী, স্কুল-কলেজে সহশিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা সহ বিভিন্ণ জাতীয় দিবস উদযাপনে প্রশাসনকে সহায়তা প্রদান করছে। এছাড়া ইউনিটের সম্মানিত আজীবন সদস্যবৃন্দ ইউনিটের বিভিন্ন কর্মকান্ডে আত্মরিক সহযোগিতা প্রদাণ করছেন। বর্তমানে ইউনিটে ১০ সদস্যের একটি কার্যনির্বাহী কমিটি, ০১ জন অফিসার ও ০২ জন অফিস পিয়ন রয়েছে; যার তালিকা নিন্মে দেয়া হলঃ

ক্রঃ নংঃ

নাম

পদবী

মোবাইল নাম্বার

০১.

আলহাজ্জ্ব নূর মোহাম্মদ কোতোয়াল

ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান

০১৭৩১-৬৭২৬২০

০২.

এ্যাডঃ আলমগীর মুন্সী

সেক্রেটারী

০১৭১২-০২২৭০৯

০৩.

ইকবাল হোসেন অপু

সদস্য

০১১৯০-৮৫৪১০৬

০৪.

অনল কুমার দে

সদস্য

০১৭১২-৫৩৫১৭৫

০৫.

এম.এম. বশির  উল  আলম

সদস্য

০১৭১১-২৪৫৫৭১

০৬.

অধ্যক্ষ দেলোয়ার হোসেন তালুকদার

সদস্য

০১৮১৩-১৫৯৮৭২

০৭.

কামরম্নজ্জামান উজ্জ্বল

সদস্য

০১৭১১-১৮৭৮৫৫

০৮.

মোঃ গোলাম মোসত্মফা

সদস্য

০১৯১৪-৩৬৩০৯০

০৯.

সিদ্দিকুর রহমান পাহাড়

সদস্য

০১৭১২-৫৩৭৪৭৩

১০.

এ্যাডঃ কামাল হামিদী

সদস্য

০১৭১২-২৬৩৩০৪

১১.

মোঃ ফরহাদ আলম

ইউনিট  কর্মকর্তা

০১৭১৪-২১১৫৯২

১২.

তাইজুল ইসলাম

যুব প্রধান

০১৭৩০-৯৯৩২৩২

১৩.

নুরুল আমিন মাদবর

অফিস পিয়ন

০১৭২৬-২১৮৭৩২

১৪.

কালাম খান

অফিস ক্লিনার

০১৯৩৩-১৩২১৪৭

 

ছবি